আনাবিন সাইটে H+, H- ও H+/- বাংলাদেশী বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে কিছু কথা



লিখেছেন Moniruzzaman Robin


আমাকে আমার এক বন্ধু গত কয়েক দিন আগে প্রশ্ন করেছিলো “ইন্টারন্যাশনাল ইসলামীক বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম” সম্পর্কে যে, এই বিশ্ববিদ্যালয়টি https://anabin.kmk.org/ ওয়েবে H+/-। স্ট্যাটাসে আছে এবং সে এই H+/-। স্ট্যাটাসে থাকা একটা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হিসাবে জার্মানিতে ভর্তি হতে পারবে কি না। কিন্তু মজার বিষয় হল এই ওয়েবে H+/-। স্ট্যাটাস কোন সমস্যাই না। জার্মানীতে বিদেশী ইউনিভার্সিটিগুলোকে তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়। সেগুলো হচ্ছে H+, H- ও H+/- । কোনো প্রতিষ্ঠানের স্টেটাস যদি H+ হয়, তার মানে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি তার নিজের দেশে এবং জার্মানিতে উচ্চ শিক্ষার প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃত। আবার H- হচ্ছে তার ঠিক উল্টো। মানে জার্মানি উক্ত প্রতিষ্ঠানকে Heigher Educational Institute হিসেবে গণ্য করে না। H+/- দিয়ে বুঝায় যে উক্ত প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে কোনো স্পষ্ট মন্তব্য নেই। অন্যভাবে বলা যায় যে H+/- হচ্ছে H+ ও H- এর মাঝামাঝি অবস্থান। অনেকে বলে থাকেন যে কোনো প্রতিষ্ঠানের স্টেটাস H+/- থাকলে উক্ত প্রতিষ্ঠান্টি জার্মানিতে নিষিদ্ধ, যা সঠিক নয়। অনেকেই জার্মানিতে পড়াশোনা করছেন যাদের ভার্সিটির স্টেটাস ছিলো H+/-।

আমি নিজেই ইন্টারন্যাশনাল ইসলামীক বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম থেকে বিবিএ শেষ করে জার্মানিতে এসেছি এবং মাস্টার্সে অধয়নরত আছি। এই বিশ্ববিদ্যালয় টি কিন্তু H+/- স্ট্যাটাসে আছে। তাই কারও ভার্সিটির স্টেটাস H+/- থাকলে চিন্তা না করে এপ্লাই করুন। আর উল্লেখ করার মত বিষয় হল বাংলাদেশের কোনো ভার্সিটিরই H- স্ট্যাটাস নাই।


বর্তমানে বাংলাদেশে ১১ টি ভার্সিটির H+/- স্টেটাস রয়েছেঃ ১। International Islamic University Chittagong ২। BGC Trust University Bangladesh ৩। Queen's University ৪। Gono Bishwabidyalaya ৫। University Central University of Science and Technology ৬। Britannia University ৭। Darul Ihsan University ৮। University of South Asia ৯। Southern University Bangladesh ১০। IBAIS University ১১। Sylhet International University


এই লেখা পড়ার পরে কোন প্রশ্ন থাকলে বা মতামত দিতে চাইলে অথবা কাউকে ট্যাগ করতে চাইলে আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ থেকে করতে পারেন


Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।