কোনটা গুরুত্বপূর্ণ- জার্মানি আসা নাকি পড়ালেখা করতে আসা?

লিখেছেনঃ মুহিব হাসান, এমএসসি ইন এনভাইরনমেন্টাল এন্ড রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট, বিটিইউ কটবুস, জার্মানি।


জীবনে অনেককিছুই গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারাটা সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক সময়ের সঠিক বা বেঠিক দুই সিদ্ধান্তই আপনার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিতে যথেষ্ট।

উচ্চশিক্ষায় 'জার্মানি' এখন অনেকের কাছেই স্বপ্নের দেশ। কিন্তু ৫-৭ বছর আগেও আমরা অনেকেই বুঝতাম উচ্চশিক্ষা মানেই আমেরিকা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ...। এই যে জার্মানি এখন অনেকের 'চয়েজ-লিস্ট' এর টপে এসেছে, এর অনেকগুলো কারণ রয়েছে। এসব কারণের মধ্যে স্কলারশিপ ছাড়াও তুলনামূলক কম খরচে পড়ালেখার করার সুবিধা ও এডমিশন-প্রসেসিং এর ঝক্কিঝামেলা কম হওয়া অন্যতম। আর আমার জানামতে, একটু কষ্ট করলেই এখন জার্মানিতে 'কোনো না কোনো' ভার্সিটিতে এডমিশন পাওয়া যায়। এই কারণেও এখন প্রচুর শিক্ষার্থী জার্মানি-মুখি হতে শুরু করেছে এবং দেশ ছাড়ছে।

প্রতি বছর উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ থেকে জার্মানি আসার সংখ্যা বাড়ছে। সময়ের সাথে সাথে বাড়বে এটাও স্বাভাবিক। কিন্তু যা স্বাভাবিক নয়, তা হলো- অনেকেই না বুঝে দেশ ছাড়ছে!!! একটু বুঝিয়ে বলার চেষ্টা করি-

জার্মানিতে যেসব শিক্ষার্থীরা এসেছেন, আসছেন বা আসতে চান তাদেরকে কয়েকটি শ্রেণিতে এখন ভাগ করা যায়।

>>> পড়ালেখাই মূখ্য উদ্দেশ্য

>>> পড়ালেখা মোটামুটি একটা হলেই হলো

>>> জার্মানিতে যাওয়াটাই মূখ্য, পরেরটা দেখা যাবে

>>> অন্যান্য (অন্যান্যদের কথা অন্যদিন করা যাবে)

যাঁদের পড়ালেখাটাই মূখ্য উদ্দেশ্য, তাঁদেরকে নিয়ে তেমন কিছু বলার নেই। শুধু একটু খেয়াল রাখবেন নিজের ডেডিকেশন-লেভেলটা ধরে রাখার। অনেককে দেখেছি ইউরোপে আসার পর চাকচিক্য আর স্রোতে গা ভাসিয়ে নিজেকে বিলীন করতে ও নিজের উপর নিজের লাগাম হারাতে। অবশ্যই ইউরোপ দুনিয়ার মোহে ঢাকা এবং যৌবনে কাছে টানবে, কিন্তু সময়ে ছুঁড়ে ফেলতেও সময় নিবেনা।

'পড়ালেখা মোটামুটি হলেই হলো' যদি হয় অবস্থা, তাহলে বলবো, প্রতি পদেই সতর্ক থাকতে। পড়ালেখা যেমন মোটামুটি ভালোভাবে শেষ করতে হবে, ঠিক তেমনি নিজেকে প্রস্তুতও করতে হবে পরবর্তী স্ট্রাগলের জন্য।

যাঁদের 'একমাত্র ইচ্ছা' জার্মানিতে আসা এবং পরেরটা দেখা যাবে, মূলত তাঁদের জন্য কিছু কথা বলাটা খুব বেশি জরুরি। অনেকেই মনে করেন- ইউরোপে ঢুকতে পারলেই হলো, পড়ালেখা তো শুধু একটা বাহানা মাত্র, দেশে আর ভালো লাগছেনা, জার্মানিতে পড়ালেখা শেষ করতে না পারলে অন্য ব্যবস্থা করে ফেলবো ইত্যাদি ইত্যাদি....

উপরিউক্ত ইচ্ছাগুলো থেকে দেখা যায় অনেকেই জার্মানিতে নিজের রিলেটেড ফিল্ডে এডমিশন না পেয়েও চলে আসছেন, লতায়-পাতায় হলেও চলে আসছেন, চাকরির বাজার অনিশ্চিত জেনেও আসছেন, অন্য উদ্দেশ্যেও আসছেন আবার মজা করার জন্যেও আসছেন।

যদি আসলেই আপনার ব্যাচেলরের সাথে খুব বেশি মিল না থাকে, তাহলে বলবো জার্মানি আসার আগে একটু ভেবে দেখবেন। অনেকেই বলতে পারেন, মিল না থাকলে এডমিশন কেন দিবে ভার্সিটি? অবশ্যই কথা 'সত্য'। জার্মানিতে এমন কিছু কোর্স আছে যেগুলোতে কিছু 'শর্ত' পূরণ করেই এডমিশন পাওয়া যায়। Non-restricted সাবজেক্টও রয়েছে অনেক। এসব কোর্সে আপনার ব্যাচেলরের মিল ১০-২০% হলেও থাকবে। কিন্তু চিন্তা এখানেই যে, জব মার্কেটেও আপনার চান্স ১০-২০%। হ্যাঁ, অনেকেই আবার বলবেন যে, প্রয়োজনে ব্যাচেলর ইকুইভ্যালেন্ট করে জব করবেন। এখানেও বলবো- এখন পর্যন্ত জার্মানিতে জব ভিসা পেতে 'মাস্টার রিলেটেড' জব পাওয়া বড় একটি বাধা।

অনেকেই মিল আছে মনে করে এসে ধোঁকা খেয়ে যান। এসে দেখেন দুনিয়া পুরোই উল্টো। তাই, বলবো ফেসবুক গ্রুপ রয়েছে, পেজ রয়েছে। হেল্প করার মতো মানুষ পাবেনই। আসার আগে একটু বিস্তারিত ধারণা নিয়েই আসুন।

অনেকেই আছেন দেশে কিছু হচ্ছে না, হাঁপিয়ে উঠেছেন, তাই আসতে চান। তাঁদের উদ্দেশ্যে বলা- আসলেই কি আপনি পড়ালেখা চালিয়ে যাওয়ার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত? আসলেই কি আপনি পড়ালেখা করতে আসাকে 'ঢাল' হিসেবে বা 'Escaping ড়ুত' হিসেবে ব্যবহার করছেন না?- একটু ভেবে দেখুন।

অনেকেই জানেন যে, মাস্টার্স তাঁদের ব্যাচেলর রিলেটেড কোর্স না এবং জেনেশুনেই আসতে চান, তাঁদের নিজস্ব পরিকল্পনা থাকতে পারে। তবে, যদি এই পরিকল্পনা হয় 'একটা কিছু হয়ে যাবে।'- অনুগ্রহ করে আরেকটা বার চিন্তা করুন। একটা কিছু কী হওয়ার চিন্তা করছেন এবং কীভাবে করছেন।

সবসময় একটা কথা বিশ্বাস করি- পরের ঝামেলা থেকে আগের ঝামেলা ভালো (অনেকক্ষেত্রেই)।

সর্বশেষ যাঁরা পড়ালেখার নামে শুধুমাত্র ইউরোপে ঢুকার চিন্তা নিয়ে আসছেন, ইউরোপ দেখার ইচ্ছে নিয়ে আসছেন, তাঁদের জন্য শুভকামনা রইল।

কাউকে নিরুৎসাহিত করার বিন্দুমাত্র অভিলাষ আমার নেই। নিজের অভিজ্ঞিতায় যা দেখছি, যাঁদের দেখছি, তাঁদের এবং তা নিয়েই লেখার চেষ্টা করেছি।

জীবনটা নিজের, নিজেই সুন্দর করতে পারি আমরা সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার মধ্য দিয়ে।



Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।