কোলন ক্যাথিড্রাল অথবা সৌন্দর্যের বিশালতা

লিখেছেন আসিশ খান

English and American Studies, Ruhr-Universität Bochum


কিছু জিনিস ছবির চেয়ে খালি চোখে অনেক বেশি সুন্দর।রোমান সাম্রাজ্য কর্তৃক ১২৪৮ সালে নির্মিত এই কোলন ক্যাথিড্রাল বা কোলন গির্জার সৌন্দর্য আর মাহাত্ম্য এতটাই বিশাল যে তা ক্যামেরার ফ্রেমে তুলে ধরা অসম্ভব। জার্মানির সবচেয়ে আকর্ষণীয় এই স্থাপনা দেখতে প্রতিদিন বিশ থেকে ত্রিশ হাজার ভ্রমণপিপাসু মানুষ এখানে আসে। আসার সময় কোলনের ট্রেনে লেবাননের দুই তনয়ার সাথে কথা হলো যারা শুধু এই গির্জাটি দেখতে একদিনের জন্য জার্মানিতে এসেছে।প্রতি বছর পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা প্রায় ৬০ লক্ষ পর্যটকদের পিপাসা মিটানো জাতিসংঘের বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসাবে ঘোষিত এই গির্জাটি পর্যটকদের ভোটে জার্মানির সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য পর্যটনকেন্দ্র হিসাবে নির্বাচিত হয়েছে। জার্মানির চতুর্থ বৃহত্তম শহর কোলনে অবস্থিত প্রায় ৮০০ বছরের পুড়নো এই কোলনার ডোম এখনো পৃথিবীর সর্বোচ্চ টুইন গির্জা। ১৮৮৪ সাল পর্যন্ত এই স্থাপনাটি ছিলো পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু অট্টালিকা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ১৪ বারে মোট ৭০ টি বোমার আঘাতে জর্জরিত হওয়ার পরো সৌন্দর্য আর বিশালতার অনুপম প্রতীক হয়ে আজও দাঁড়িয়ে আছে এই কোলন ক্যাথিড্রাল। (ছবি ২০১৮ সালে নেয়া)


এই লেখা পড়ার পরে কোন প্রশ্ন থাকলে বা মতামত দিতে চাইলে অথবা কাউকে ট্যাগ করতে চাইলে আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ থেকে করতে পারেন

Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।