বার্লিনে ব্যতিক্রমী বিক্ষোভ ট্র্যাক্টরের তুফান (পুরাতন লেখা)!!!

যারা গতকালকে বার্লিনে ছিলেন তারা জীবনের এক ব্যতিক্রমী অভিজ্ঞতা পেয়েছেন। গতকালকে বার্লিনের সেন্টারসহ প্রায় সকল মূল জায়গা ছিল অবরুদ্ধ। সারা দেশ থেকে কৃষকেরা হাজার হাজার ট্র্যাক্টর নিয়ে এসে পুরো বার্লিন অচল করে দিয়েছিলো। অনেক বাংলাদেশী সারা জীবনেও এতো ট্র্যাক্টর একসাথে দেখেনি। আর আমার তো সারা জীবন দূরে থাকুক, আমার পুরো গোষ্ঠী সারা জীবনেও এতো ট্র্যাক্টর একসাথে দেখেনি। এটা ছিল বার্লিনের নিকটতম ইতিহাসের সবচাইতে বড় সাধারন জার্মানদের বিক্ষোভ সমাবেশ। জার্মান পুলিশের হিসেবে ৮৫০০ এর বেশি ট্র্যাক্টর, ২০ হাজারের বেশি কৃষক এই বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে। এর মূল কারন, জার্মান সরকার ২০২৩ সাল থেকে আইন করে কৃষি ক্ষেতে সার এবং কীটনাশক ব্যবহার সীমিত করতে অথবা পারলে পুরোপুরি বন্ধ করতে চাচ্ছে। তাদের কথা এতে এখানকার পরিবেশ রক্ষা হবে। আর কৃষকদের যুক্তি জার্মানদের রাজনীতিবিদরা কেউ ক্ষেতে তাদের মতো চাষ করে না, তারা শুধু কথা বলে। যদি ক্ষেতে পর্যাপ্ত সার এবং কীটনাশক ব্যবহার না করতে পারে তাহলে ফলন অর্ধেকেরও বেশি কমে যাবে। আবার জার্মান আইন অনুযায়ী তারা দ্রব্যমূল্যের দাম যখন তখন বাড়াতে পারবে না। তাই সব দিক থেকে ক্ষতি তাদের। যদি কৃষকদের ক্ষোভ টিকে থাকে তাহলে এঞ্জেলেনা মার্কেলের সরকারের জন্য এখন রিফিউজী সংকটের পরে এটাই সবচাইতে বড় সঙ্কট। গতকালকে বার্লিনের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা Tempelhofer Damm, Kaiserdamm, Beusselstraße, Brandenburger Tor, Ernst-Reuter-Platz, Kaiserdamm, Bismarckstraße সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিলো।

আমার মতে ইউরোপের কোথাও এমন জার্মানির মতো শক্ত আউল ফাউল আইন নেই। জার্মানরা আইন করতে করতে এখন নিজেরাও জানে না, আর কোথায় কোথায় আইন করা বাকি আছে। বিদেশীরা সহ জার্মানরাই আইনের জ্বালায় ঠিক করে নিঃশ্বাস নিতে পারছে না। এখানে অনেক সময় মনে হয় বড় এক সামাজিক প্রিজন খানায় আছি।

আজকের দিনে এই বিক্ষোভের কথা জার্মান সকল মিডিয়ার হেডলাইন। এমনকি ইউরোপ এর অন্য সকল দেশের পেপার পত্রিকাতে ও এই বিক্ষোভের কথা ফলাও করে প্রচার পেয়েছে।

খবর সূত্র

(জার্মান ভাষায়) http://tiny.cc/fqqxgz

(জার্মান ভাষায়) http://tiny.cc/srqxgz

(জার্মান ভাষায়) http://tiny.cc/6sqxgz

ছবির সূত্র ইন্টারনেট।








লেখক Nur Mohammad

এই লেখা পড়ার পরে কোন প্রশ্ন থাকলে বা মতামত দিতে চাইলে অথবা কাউকে ট্যাগ করতে চাইলে আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ থেকে করতে পারেন

Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।