ছারপোকার সমস্যা নিয়ে জার্মানিতে না জানা কিছু তথ্য।



এখন জার্মানিতে সামার শুরু হয়ে গেছে। সামারে যে সমস্যা এখানে খুব বেশি হয়, তাহলো ছারপোকার উৎপাত। এটা মুলত ঘর বা জামা কাপড় পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার সাথে জড়িত। আবার অনেকেই ঘর পরিষ্কারের দিকে মনোযোগী হলেও, নিজের শোয়ার মেট্রেস বা তোষক বা দেশ থেকে আসার পরে লাগেজের দিকে মনোযোগ দেয় না। মুলত ছারপোকা এসব থেকে শুরু হয়। আর একবার ঘরে ছারপোকা শুরু হলে এটা সারা বাসায় ছড়িয়ে পড়া সময়ের ব্যাপার। জার্মানি এক মাত্র ইউরোপের দেশ যেখানে ছাড়পোকা ছড়িয়ে দেবার জন্য জরিমানা করা হয়। শুনতে ফানি মনে হলেও এটা সত্য। তবে এই জরিমানা ভিন্নভাবে করা হয়। প্রথম স্টেপে, বাসার বাড়িওয়ালা যদি জানতে পারে আপনার ঘরে ছারপোকা আছে, তাহলে এখানকার বাড়িওয়ালা আপনাকে জিজ্ঞেস না করেই বাসা পরিষ্কার করে, ছারপোকা দূর করার জন্য এই রিলেটেড পরিষ্কারের কোম্পানি ভাড়া করতে পারবে। তারপরে ঐ কোম্পানির বিল আপনার ভাড়ার সাথে যোগ করে দিবে। এটা বাড়িওয়ালা চাইলে সর্বোচ্চ বছরে এক বার করতে পারবে। আপনি চান অথবা না চান আপনাকে তখন এই বিল দিতে হবে। এই বিল মিনিমাম ৮৫০ ইউরো থেকে শুরু করে ২৫০০ ইউরো পর্যন্ত হয়। বিল নির্ভর করবে কতো জন কাজ করেছে এবং কতক্ষন কাজ করেছে এসবের উপরে। আবার আপনার আশেপাশের যেকোনো প্রতিবেশি বা রুমমেট যদি সন্দেহ করে আপনার অপরিষ্কারের জন্য তাদের বাসায় ছারপোকা এসেছে, তাহলে তারা আপনার অথবা আপনার বাড়িওয়ালার নামে ক্ষতিপূরণের মামলাও করতে পারে। যার ক্ষতিপূরণ ১০ হাজার ইউরো থেকে শুরু হয়। এমন কি বাড়ীওয়ালা যদি আপনার বাসা অভিযোগ শুনামাত্রই কোন কোম্পানিকে দিয়ে পরিষ্কার না করায় তাহলে বাড়িওয়ালার নামেও মামলা করতে পারবে। তাই বাংলাদেশে যেভাবে একটা ধারনা কাজ করে, আমার রুম আমি যেভাবে খুশি সেভাবে রাখবো, এই ধারণা জার্মানিতে কাজ করবে না। জার্মানিতে আপনাকে হুট করে কেউ বাসা ছাড়ার নোটিস দিতে পারবে না। কিন্তু ছারপোকার অভিযোগ খুব মারাত্মক। যে কেউ বাড়ির মালিক বা বাড়ির কোম্পানিকে এই অভিযোগ দিলে সাথে সাথেই তারা ব্যবস্থা নিতে বাধ্য। এতে শুধু আপনি বাসা ছাড়ার নোটিস পাবেন না, তার সাথে অনেক বড় অংকের জরিমানাও পেতে পারেন। যদি বাসায় ছারপোকা চলেই আসে, তাহলে দেরী না করে দ্রুত বাসার সব কিছু পরিষ্কার করা উচিৎ। বাসার মেট্রেস, কারেন্টের প্লাগ, লাগেজ থেকে শুরু করে রান্নাঘর পর্যন্ত প্রতিটা কোনা পরিষ্কার করা উচিৎ। এমন কি পুরো বাসা ভালোভাবে পরিষ্কার করার জন্য প্রয়োজনে দুই তিন দিন সময় লাগিয়ে করেন। যদি washing machine এ আপনাকে কাপড় পরিষ্কার করতে হয়, তাহলে মাথায় রাখবেন ৬০ ডিগ্রীতে তাপমাত্রায় ছারপোকা সবসময়ে মরে না। তাই ক্ষেত্র বিশেষে ৯০ ডিগ্রিতে কাপড় ধুবেন। আর ছারপোকা মারার ওষুধ আপনারা DM থেকে কিনতে পারেন। তবে এখানকার ওষুধ টানা দুই তিন ধরে না দিলে কাজ হয় না। আমার অভিজ্ঞতায় এই ক্ষেত্রে বাংলাদেশের ওষুধ বেস্ট। আসা করি আপনারা সিরিয়াস হলে বাসায় কখনই ছারপোকা আসবেনা। আমি ব্যক্তিগতভাবে একটুর জন্য নিজের বাড়িওয়ালা থেকে ১১০০ ইউরো জরিমানা খাইনি। অনেক অনুরোধের পরে আমাকে তখন ৪৮ ঘন্টা সময় দিয়েছিলো, যেভাবেই হোক ঘরকে ছারপোকা মুক্ত করতে। তাছাড়া যে ওষুধ আমি DM থেকে কিনেছিলাম, তা এর আগে দুই দিন দেবার পরেও কাজ হয় নি। পরে আমার এক জার্মান ফ্রেন্ড আমাকে একটা ওষুধের সাজেশন দিয়েছিলো, আমি যেটাতে বেস্ট উপকার পেয়েছিলাম। নাম INSECTINO। একটা স্প্রে বটল আরেকটা ছোট ড্রামে পুরো ওষুধ। খুব উপকারি এবং পাওয়ারফুল। রাতে ভালো ভাবে দিয়ে এক বা দুই রাত বন্ধুর বাসায় থাকবেন। আপনি এটা Amazon থেকে কিনতে পারবেন। Amazon এর লিঙ্ক https://amzn.to/2zkCWI5 আমার তথ্যসূত্র ১। https://bit.ly/2Uuchjw ২। https://bit.ly/3e1Ybxz লেখক Nur Mohammad এই লেখা পড়ার পরে কোন প্রশ্ন থাকলে বা মতামত দিতে চাইলে অথবা কাউকে ট্যাগ করতে চাইলে আমাদের ফেইসবুক গ্রুপের মাধ্যমে দিতে পারেন।

Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।