জার্মানিতে উচ্চশিক্ষায় আসার আগে যে বিষয়গুলো অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে

১। জার্মানিতে আসা মানেই এখানে স্থায়ী হয়ে যাবেন সেটা স্বপ্নেও কল্পনা করবেন না। স্থায়ী হতে হলে আপনাকে সেই কোয়ালিটি অর্জন করতে হবে।

২। আপনি যদি স্বভাবগত ভাবে অলস হয়ে থাকেন তাহলে জার্মানিতে আসতে দ্বিতীয় বার চিন্তা করে নিবেন।

৩। আপনি যে ফিল্ডে পড়াশোনা করতে আসবেন সেই বিষয়ে যদি পর্যাপ্ত ধারণা এবং ইন্টারেস্ট না থাকে তাহলে জার্মানি আপনার জন্য না।

৪। টাকা ও নারী, আপনার মাথায় যদি এই দুটো জিনিসই মুখ্য হয়ে থাকে তাহলে ভাল কিছু করতে পারবেন না জার্মানিতে।

৫। নেশাগ্রস্থ এশিয়ান ছাত্রছাত্রীদের জন্য জার্মানি ভাল গন্তব্যস্থল নয়।

৬। আপনি ইংরেজিতে দুর্বল? তাহলে জার্মানিতে আসার পূর্বে অবশ্যই ইংরেজির ফাউন্ডেশন শক্তপোক্ত করে আসবেন।

৭। আপনি ছাড় দিতে পারেননা? জার্মানি আপনার জন্য কঠিন দেশ।

৮। আপনি মারাত্মক ইগোওয়ালা মানুষ? খুবই বিপদ আছে জার্মানি আসলে।

৯। পড়াশোনা রেখে মূলত টাকা কামাতে আসতে চান? জার্মানি হবে আপনার জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল সিদ্ধান্ত।

১০। জার্মানিতে এসে জার্মান বিয়ে করে স্থায়ী হবেন? ১০০ হাত দূরে থাকুন।

১১। মনে রাখবেন জার্মানরা আপনাকে ভিসা দিয়েছে মানে এই না তারা আপনাকে তাদের দেশে জামাই আদর করে রাখবে। আপনাকে যোগ্যতা প্রমাণ করেই এখানে থাকতে হবে। প্রতিবছর তারা শত শত ছাত্রছাত্রীদের স্টুডেন্ট ভিসা দিচ্ছে। এখান থেকে অনেকেই যোগ্যতা দিয়ে টিকে থাকবে। বাকিদের বের করে দেওয়া হবে। যোগ্যতা প্রমানের মাপকাঠি হচ্ছে পরীক্ষার ফলাফল ও ডয়েচ স্কিল। পড়াশোনা শেষ করে আপনাকে ঐ ফিল্ডে জব পেতে হবে এবং বেতনও হতে হবে তাদের মাপকাঠি অনুযায়ী। মনে রাখবেন জব ফিল্ডে আমাদের সাউথ এশিয়ানরা থাকে সব থেকে পেছনের সারিতে। সাদাচামড়ার মানুষ মানেই কিন্তু মানবিক না বিশেষ করে জব ফিল্ডে। তারা সবার আগে জার্মান এবং এরপর ইউরোপিয়ান নাগরিকদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দিয়ে থাকে যদি উক্ত জব ফিল্ডে একই কোয়ালিফিকেশন থাকে।

১২। জার্মানিতে আসার পূর্বে আপনার সাবজেক্টের জব ফিল্ড সম্পর্কে একজন বিশ্বাসযোগ্য মানুষের সাথে পরামর্শ করে আসবেন। বাস্তব হলেও সত্য আপনাকে অনেকেই নিজের মনগড়া তথ্য দিয়ে ভুল সিদ্ধান্ত নেওয়াবে। অনেকেই আছে যারা নিজেরা জব ফিল্ডে এখনো নামেনি কিন্তু মানুষের কাছ থেকে শুনে আরো কিছু যোগ করে একটু বাড়িয়ে বলে। সবচেয়ে ভাল হয় আপনার সাবজেক্ট থেকে পাশ করে এখন জব করছে এমন কারো সাথে কথা বলে নেয়া।

১৩। যারা ব্যাচেলরে আসবেন তারা অবশ্যই চিন্তা করে সিদ্ধান্ত নিবেন। ব্যাচেলরে আসার পূর্বে জার্মানিতে অলরেডি ব্যাচেলর কমপ্লিট করেছে এমন কারো সাথে সরাসরি কথা বলে এরপর সিদ্ধান্ত নিবেন।

১৪। আপনি দেশে থাকতে মানুষের খাতা দেখে, নকল করে পরীক্ষা দিয়েছেন? সেই অভ্যাস বাংলাদেশে সর্বশেষ পরীক্ষাতেও সফলতার সহিত ইমপ্লিমেন্ট করেছেন?দয়া করে জার্মানিতে আসবেন না, বড়ই বিপদ অপেক্ষা করছে আপনার জন্য।

১৫। আপনি মেয়ে এবং মনে করছেন জার্মানিতে আসলে অতিরিক্ত ফ্যাসিলিটি পাবেন অথবা খুব বিপদে পড়বেন? খুবই ভুল ধারনা। জার্মানিতে আপনি মেয়ে হয়েছেন বলে অতিরিক্ত সুবিধা যেমন পাবেন না তেমনি মেয়ে হিসেবে আপনি কোথাও বৈষম্যের স্বীকার হবেন না। আপনাদের বাড়তি একটা সুবিধা আছে সেটি হচ্ছে এখানে আপনারা সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পাবেন। কিন্তু জবের ক্ষেত্রে ছেলেদের মতই ভারী কাজ করতে হবে, একই ধরনের জব করতে হবে,একই প্রক্রিয়ায় জব খুজে বের করতে হবে। তাই যদি মনে করেন আপনি শারিরিক ভাবে খুব বেশি দুর্বল এবং অলস তাহলে কয়েকবার চিন্তা করুন জার্মানি আসার পূর্বে।



Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।