জার্মানি সহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ইরাসমুস মুন্ডুস স্কলারশিপ

ইরাসমুস মুন্ডুস স্কলারশিপ উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের একটি স্কলারশিপ প্রোগ্রাম। এটি সাধারণত ১০০% স্কলারশিপ যার আওতায় টিউশন ফি ছাড়াও মাসিক ১০০০ ইউরো করে দেওয়া হয় সাথে আছে অন্যান্য সুবিধা। এই প্রোগ্রামের আওতায় স্টাডি কোর্স গুলো হয়ে থাকে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ মিলিয়ে। সাধারণত এক এক সেমিস্টার এক এক দেশে করতে হয়ে। আমার জানা মতে ৪১ টি স্টাডি প্রোগ্রামে জার্মান ইউনিভার্সিটিগুলো অংশগ্রহণ করছে। তার মানে এই স্টাডি প্রোগ্রামগুলো কোন না কোন পার্ট আপনি জার্মান বিশ্ববিদ্যালয়ে করতে হবে। এখানে সবচেয়ে মজার বিষয় হল ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ঘুরে দেখার সুযোগ!


স্কলারশিপ কেন, কাদের জন্য?


স্কলারশিপ বিভিন্ন কারণে দেওয়া হয়ে থাকে। ডেভলপমেন্ট এসিস্টেন্ট, সফট পাওয়ার বৃদ্ধি, নারী ক্ষমতায়, একাডেমিক কার্যক্রমের গ্রোবাল ব্র্যান্ডিং/ প্রমোশন আর দ্বিপক্ষিত সম্পর্ক বাড়ানোর জন্য সাধারণত কোন দেশ স্কলারশিপ দিয়ে থাকে। স্কলারশিপ দেওয়াই হয় যারা এক্সট্রা অর্ডিনারি স্টুডেন্ট তাদের।তবে স্কলারশিপ আসলে একটা প্যাকেজের মত যেখানে একাডেমিক রেজাল্টের বাহিরেও বিভিন্ন বিষয় দেখা হয়। আপনার একাডেমিক রেজাল্ট কিছুটা কম হলে আপনার এক্সটাক্যারিকুলার এক্টিভিটিজ, ভাষা দক্ষতা ইত্যাদি দিয়ে তা অনেক সময়ই কাভার করা যায়। তাছাড়া যাদের শুধুমাত্র ভালো রেজাল্ট বা একাডেমিক প্রোফাইল আছে কিন্তু তাকে দ্বারা সমাজের বা দেশের কিছু হবেনা তাদের আসলে জার্মানিতে স্কলারশিপ পাবার সম্ভাবনা কম। এই মোটিভেশন আর পোর্টফোলিও তুলে ধরবে আপনার মোটিভেশন লেটার আর আগে সামাজিক কাজের অভিজ্ঞতা।


অবদানের সময়: স্টাডি প্রোগ্রাম ভেদে বছরের অক্টোবর থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত। তবে নভেম্বর ও জানুয়ারিতে বেশিভাগ ডেডলাইন!


যে স্টাডি প্রোগ্রামগুলোতে আবেদন করা যাবে: https://eacea.ec.europa.eu/erasmus-plus/emjmd-catalogue_en


আবেদনের সাধারণ রিকোয়ারমেন্ট:


১. ভালো একাডেমিক রেজাল্ট


২. ভাষাগত দক্ষতার প্রমান (IELTS/TOFEL)

মিডিয়াম অব ইন্সট্রাকশন দিয়েও কিছু কিছু কোর্স আবেদন করা যায়!


৩. GRE/GMAT বেশভাগ কোর্স না লাগলেও নিজেকে শক্ত প্রতিযোগী হিসাবে উপস্থাপন করতে কাজে দিতে পারে।


৪. মোটিভেশন লেটার খুবই গুরুত্বপূর্ণ যেকোন স্কলারশিপের জন্য। নিজেকে যোগ্য প্রার্থী হিসাবে উপস্থাপন করার জন্য নিজের একাডেমিক, প্রফেশনাল, এক্সটা কারিকুলাম এক্টিভিটিস, যে প্রোগ্রামে আবেদন করবেন তারা সাথে আপনার আগ্রহ, ভবিষৎ পরিকল্পনা, এই স্কলারশিপ কি ভাবে আপনাকে দেশ ও জাতির সেবায় কাজ করতে সহযোগিতা করবে তার ফুটিয়ে তুলতে হবে. অল্প কথায় সুন্দর ভাষাশৈলী আপনার স্কলারশিপ পাওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তুলতে পারে। মোটিভেশন লেটার কিভাবে তৈরী করতে হয় তার উপর ধারণা পেতে বিভিন্ন লেখা আমাদের এই গ্ৰুপে পাবেন আর গুগুলতো আছেই। খুবই গুরুত্বপূর্ণ হল মোটিভেশন লেটার কপি পেস্ট করবেননা, তবে আইডিয়া নিতে পারেন বিভিন্ন জায়গা থেকে। বানান আর গ্রামারের দিকেও নজর রাখতে হবে!


৫. রিকমেন্ডেশন লেটার: স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য রিকমেন্ডেশন লেটার গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে. আপনাকে ভালো ভাবে চিনে এইরকম ২ জন যোগ্য ব্যক্তি থেকেই রিকমেন্ডেশন লেটার নেওয়া ভালো। সবচেয়ে ভালো হয় একজন প্রফেসর আর আরেকজন প্রফেশনাল হলে, যাদের সাথে বা তত্ত্বাবধানে আপনি কাজ করেছেন। একটিভ ব্যাক্তি থেকে রিকমেন্ডেশন লেটার নেওয়া উত্তর যারা নিয়মিত ইমেল চেক করেন, অফিসিয়াল ইমেল ইউজ করেন বা প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইটে নাম উল্লেখ আছে, রিসার্স গেটে খুঁজলে ভালো পোর্টফোলিওসহ নাম আসে এইরকম।

৬. ইউরোপাস (Europass) ফরম্যাটের সিভি। যেটা আপনি http://europass.cedefop.europa.eu/ এই ওয়েবসাইট থেকে করে নিতে পারেন আর গুগুলে খুঁজে করলেও অনেক ইউরোপাস মডেল সিভি পাবেন।


যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হবে:


১. যেহেতু ৩ টির বেশি কোর্স আবেদন করা যায়না তাই যে কোর্সগুলোর সাথে নিজের প্রোফাইল বেশিমিলে যাওয়া ও আগ্রহ বেশি সেগুলোতেই আবেদন করা উচিত।


২. যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আবেদন করা উচিত কোন ভাবেই শেষ দিন পর্যন্ত সময় নেওয়া ঠিক না!


৩. যেহেতু এই স্কলারশিপে আবেদনে জব এক্সপেরিয়েন্স বাধ্যতামূলক নয় তাই ফ্রেশ ব্যাচেলর করা শিক্ষার্থীদের জন্য একটু বিশাল সুযোগ।


আরো বিস্তারিত জানতে এড হতে পারেন : Erasmus Mundus Bangladesh ফেসবুক গ্রুপ


তথসুত্রঃ


EACEA Education, Audiovisual and Culture Executive Agency অয়েবসাইট


Erasmus Mundus Bangladesh ফেসবুক গ্রুপ


ছবিঃ ইন্টারনেট


©️এই লেখার মেধাস্বত্ব শুধুমাত্র লেখকের এর জন্য সংরক্ষিত।



Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।