বিদেশে উচ্চ শিক্ষার প্রস্তুতি


উচ্চ শিক্ষার জন্য সবচেয়ে দরকারি হল সঠিক প্রস্ততি। ইদানিং একটা প্রবনতা দেখা যায় যে, সঠিক প্রস্ততি ও পরিকল্পনা ছাড়া সবাই বাহিরে আসতে চাই। একটা মানসিক রোগ এই যে, দেশের বাহিরে যাওয়া মানেই জান্নাতে চলে গেলাম! মনে হয় বিদেশে গেলেই শুধু টাকা আর টাকা। আমার ব্যাক্তিগত পরামর্শ হল, এইসব অবাস্তব ভাবনা মাথা থেকে একদম নামিয়ে রাখুন। তার মানে এই নয় যে আমরা চাই না আপনারা উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশে আসুন। আমরা চাই আপনারা আসুন, তাইতো সময় দিয়ে আপনাদের জন্য লিখা। এখানে অনেক সুযোগ আছে সত্য, কিন্তু আপনাকে তার জন্য যোগ্য হতে হবে। কেউ যদি যোগ্য ই না হয় তাহলে কিভাবে আপনি তা অর্জন করবেন? কিছু উদারন বলি তাহলে আপনাদের কাছে ব্যাপারটা পরিস্কার হবে। অনেকে বলে ভাই জার্মানি যেতে চাই কিন্তু আমি IELTS করতে পারবো না, আমাদের দেওয়া লিঙ্কটা ও একটু মনোযোগ দিয়ে দেখার সময় নাই, নিজ থেকে ও একটু চেষ্টাও করেন না, ভালো ভাবে পড়বেন না, জানবেন না। তাহলে ভাই কিভাবে হবে?


** নিজের অভিজ্ঞতার আলোকে বলছি, Higher study এর জন্য সুচিন্তিতভাবে আগানো দরকার বলে আমি মনে করি। তাঁর কিছু নিচে উল্লেখ করলাম-

১. ভালো CGPA দরে রাখা।

২. ইংরেজিতে দক্ষতা বাড়ানো ও IELTS / TOFEL এর জন্য প্রস্ততি নেওয়া, যথা সম্ভব ব্যাচেলর লেভেলে পরীক্ষাটা শেষ করা। ( সাধারণত IELTS স্কোর ব্যাচেলরের জন্য ৬ এবং মাস্টার্স এর জন্য ৬.৫, কোন মডিউলে ৬ এর কম নয়)

৩. এনালিটিকেল দক্ষতা প্রমানের জন্য GMAT/ GRE পরীক্ষাটা শেষ করা একটা ভালো স্কোর সহ।

৪. যত বেশি সম্ভব ছোটখাটো জব, ইন্টার্নশীপ ও প্রোজেক্ট এ কাজ করার অভিজ্ঞতা নেওয়া।

৫. সম্ভব হলে পাবলিকেশন করা।

৬. এক্সটা কারিকুলাম কার্যক্রম এ অংশগ্রহণ করা। শুধু মাত্র বিতর্কই নয়, এর পাশাপাশি বিভিন্ন ট্রেনিং, সেমিনার-সিম্পজিয়াম,লিডারশিপ প্রগ্রাম, সোশ্যাল ওয়ার্ক, সচেতনতা,সামাজিক ও স্টুডেন্ট প্রতিনিধিত্বমূলক কার্যক্রমও হতে পারে।

৭. কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারিক জ্ঞান বাড়ানো, কারন তা আপনার উচ্চ শিক্ষার জন্য লাগবেই।

৮. পড়াশোনা করা অবস্থাতেই বিবিন্ন দেশের উচ্চ শিক্ষার সুবিদা ও অসুবিদা জানা বা তা সম্পর্কে খোঁজ রাখা।

৯.কমিউনিকেশন দক্ষতা বাড়ানো, কারন আপনাকে উচ্চ শিক্ষার বিভিন্ন প্রয়োজনে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রফেসর, ডিন ও কোঅডিনেটর এর সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

১০. সবপরি সময়, শ্রম ও ধৈর্য ধরে লেগে থাকা, কোন অবস্থাতেই নিরাশ না হওয়া।

***খুবই গুরুত্বপূর্ণ : উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশ যাবার জন্য আর্থিক প্রস্ততি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। স্কলারশিপ না পেলে বিদেশে আসার জন্য খরচ বাদেও অন্তত ৬ মাস থেকে ১ বছরের থাকার প্রস্ততি নিয়ে আশা ভালো। ইংলিশ ভাষার দেশ না হলে এটা খুবই খুবই দরকার। কারন নতুন দেশে এসে জব পাওয়ার মতো ভাষা জানতে সাধারণত ৬ মাস লাগে। জার্মানির ক্ষেত্রে ৩ মাস পর্যন্ত জব করার অনুমতি থাকে না। ভিসা বাড়ানো পর জব করার অনুমতি মেলে। যথাসম্ভব যে দেশে যাবেন সে দেশের ভাষা শিখা, কারন আপনি ইংরেজি মিডিয়ামে পড়লেও সে দেশে চলাচলের ও জব করার জন্য আপনার তাদের ভাষা লাগবেই। ইউরোপে হলে ভাষা শিখা খুবই অত্যাবশ্যকীয়। জার্মানিতে আসতে হলে ১০২৩৬ ইউরো ব্লক অ্যাকাউন্ট করতে হয়। ব্লক অ্যাকাউন্ট হল এমন একটা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট যাতে আপনার নির্দিষ্ট পরিমান টাকা রাখতে হবে যা আপনি চাইলেই এক সাথে তুলতে পারবেন না। আপনাকে দেওয়া হবে মাসিক ৮৫৩ ইউরো করে। সাধারণত ব্লক অ্যাকাউন্ট রাখতে হয় এক বছর এর জন্য। ব্লক অ্যাকাউন্ট হল আপনি জার্মানিতে আপনার পড়াশুনা চালাতে সক্ষম এটা প্রমানের জন্য।

**মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলাঃ ১. স্টুডেন্ট অবস্থাতে লাখ লাখ টাকা কামানোর চিন্তা বাদ দিয়ে নিজের চলার খরচের চিন্তা করা। কারন ঠিক ভাবে পড়াশোনা শেষ করলে অনেক টাকা আসবে,ওই সময়টার জন্য অপেক্ষা করা। ২. পাসপোর্ট বা অতিরিক্ত থাকার চিন্তা বাদ দেওয়া। আপনি যোগ্য হলে আপনার জন্য সুযোগ তৈরি হবেই। ৩. পড়াশোনা বাদ দিয়ে অন্য চিন্তা না করা। ৪. নিজের সংস্কৃতি, মূল্যাবোধ ও বিশ্বাসকে বিসর্জন না দেওয়া।

জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা ও ক্যরিয়ার বিস্তারিত জানতে যোগ দিন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে: https://www.facebook.com/groups/bsfg.pro/

ছবি: অনলাইন

© লেখার সত্ত্ব লেখক Iqbal Tuhin এর। যা উপযুক্ত ক্রেডিট সহকারে (লেখকের নাম এবং BESSiG গ্রুপের নাম উল্ল্যেখ করে) যেকোন সময়ে, যে কোনো জায়গাতে বিনা অনুমতিতে শেয়ার করা যাবে। উদাহারনস্বরূপ আপনারা এভাবে লেখতে পারেন (চাইলে নিচের লাইন কপি পেস্ট করতে পারবেন)

ক্রেডিট: লেখক Iqbal Tuhin এবং ফেইসবুক গ্রুপ BESSiG - Bangladeshi Expat & Student Society in Germany



Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।