আমি এখন স্বপ্নের জার্মানিতে


ভিসা মার্চে পেলেও সবেমাত্র ১৩ দিন হয়েছে জার্মানি এসেছি। মূলত এই পোস্টটি তাদের জন্য যারা আগামিতে জার্মানিতে উচ্চশিক্ষায় আসতে ইচ্ছুক।

১. আমাদের আই. এল. টি. এস. এর প্রতি একটা ভীতি কাজ করে । সবার আগে এটা কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করা উচিৎ। মিডিয়াম অফ ইন্সট্রাকশন দিয়ে বেশ কিছু ইউনিভার্সিটিতে অ্যাপ্লাই করা যায় ঠিকই তবে আই. এল. টি. এস. টা করে ফেল্লেন একটু কষ্ট করে। তাতে আপনার কমিউনিকেশন গেপটাও কমে গেল। আর তাছাড়া এখন এমব্যাসিও আই. এল. টি. এস. চেয়ে থাকে ।


২. দেশে থাকতে যেমন আমাদের মুল উদ্দেশ্য থাকে পড়াশোনা করা এখানে আসার পর এটাই অক্ষুণ্ণ রাখার চেষ্টা করা। পার্ট-টাইম জবটাকে পড়াশোনার সহযোগী হিসেবে রেখে এগিয়ে যাওয়া। কখনই পার্ট-টাইম জবটাকে মুল ফোকাস না করা ।


৩. এখানে আসার পর একটা জিনিস ভুলার চেষ্টা করুন আমাদের দেশের গদবাধা পড়াশোনার সিস্টেম। এখানে কেউ আপনাকে জোর করে পড়াবেনা। দিন শেষে নিজের টা নিজেই সামাল দিতে হবে। নিয়মিত ক্লাস করুন, একটু সময় দিন দেখবেন আপনিও সেরা।


৪. বড় শহরের ইউনিভার্সিটিতেই আপনাকে পড়তে হবে এমনটি নয় । আপনার সাবজেক্টে যেটা আপনি ভালো পারেন, সেটা যদি ছোট শহরের কোন ইউনিভার্সিটিতে হয় তাতেও সমস্যা নেই । আপনার প্রবল ইচ্ছা শক্তির কাছে সবকিছু হার মানতে বাধ্য । আপনি সফলকাম হবেনই ইনশাআল্লাহ।


৫. বড় শহর গুলোতে হরহামেশাই বাঙালী খুজে পাবেন । ছোট শহর গুলোতে বাঙালীর দেখা পাওয়া বেশ দুরহ । তবে এ নিয়ে ঘাবড়ানোর কারন নেই। আপনি পারবেন সাথে দুই একজন বাঙালী পেয়েও যাবেন।

আমার ক্ষেত্রে চিত্রটা বেশ আলাদা। আমি একটা ছোট শহরে অবস্থান করছি। কিন্তু এখানে বাঙালী কমিউনিটি বেশ বড়। আমার দুটি বড় শহরের অফার থাকা সত্তেও আমি বেছে নিয়েছি এই শহরকে কিছু সঙ্গত কারনে।


৬. জার্মানি আসবেন আর জার্মান শিখবেননা তা কিভাবে হয়? পারলে দেশেই A1, A2 করে আসুন । আর তাও না পারলে বেশ কিছু ওয়ার্ডস শিখে আসুন দৈনন্দিন কাজের জন্য। হাই হ্যালো, জার্মান সংখ্যা শিখে আসুন । রেগুলার একটা করে শব্দ শিখুন । আমি নিজেই এর ভুক্তভুগি। আসার পর মনে হয়েছে কেন জার্মান শিখে আসলাম না । ছোট শহর গুলোতে এর প্রভাব টা বেশী।


৭. এতদিন তো মায়ের হাতের রান্না খেলেন এবার একটু মা, বোনের কাছ থেকে রান্না শিখার চেষ্টা করুন । বেশী না ১ থেকে ২ মাস শিখুন দেখবেন আপ্নিও পাক্কা রাধুনি হয়ে গেছেন। এখানে আসার পর কতটা লাভবান হবেন আসলেই বুজতে পারবেন।


৮. আসার আগে ফ্যামিলির সাথে অনেক সময় দিন। বাবা মা ভাই বোনের সাথে সময় কাটান। কারন অচিরেই আপনি তাদের মিস করতে চলেছেন । ফ্যামিলির মর্ম কতটুকু সেটাও বুজতে পারবেন ।


আজ এ পর্যন্তই। আবার আসব এমন কিছু নিয়ে আগামিতে। সবার জন্য শুভ কামনা। দোয়া রাখবেন আমার জন্য।


লিখেছেনঃ নীরব শোভন





Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।