ইন্টার্নশিপের অভিজ্ঞতা



জার্মানির নামকরা প্রতিষ্টান আলিয়াঞ্জ এ ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ পেয়ে সত্যি অনেক খুশি এবং ভাগ্যবান মনে করছি। অনেক ভয়ে ছিলাম কাজ পারব কি না এসব নিয়ে। তাই সিনিয়র কলিগদের কে বলে ছিলাম প্রতি দুই সপ্তাহ পর পর কাজের ফিডব্যাক দিতে। তাদের ফিডব্যাক শোনার পর মনে হল আম্মু এবং আমার প্রফেসর এর পর কেউ আমার এত প্রশংসা করতে পারে। মুখের কথার কোন দাম নেই, বললাম লিখিত দাও, তারা ও লিখিত ভাবে প্রতি দুই সপ্তাহে একবার ফিডব্যাক দেয়। সেটা আমি ৫-৭ বার পড়ি, পারলে লোক ডেকে নিয়ে এসে পড়াই (পড়বেন না কি আপনি?)। এ জন্য মনে হয় ৮ ঘণ্টার অফিস টাইম হলেও ১০-১২ ঘণ্টা কাজ করতে ইচ্ছা করে। আমার যে মেন্টরস সে আবার এক ধাপ এগিয়ে, সে আহ্লাদিত ভাবে বলল তুমি যত দিন স্টুডেন্ট আছ আমাদের টিমে ইন্টার্ন হিসাব কাজ করার সুযোগ থাকবে (৬ মাসের কন্ট্রাক এখন ১ বছর বলা যেতে পারে), আর যদি এই টেকনিক্যাল কোর্স গুলো করতে পার তাহলে পার্মানেন্ট এমপ্লয়ি হিসাবে নিতে পারি। আমি ফাইন্যান্স এর স্টুডেন্টস- স্টক মার্কেট, ইনভেস্টমেন্ট, পোর্টফলিও-ফান্ড ম্যানেজমেন্ট বেশী ভাল লাগে, টেকনিক্যাল কোর্স না। সব গার্লফ্রেন্ড তো আর বউ হয় না। তবে এই ডিজাইনের পিংক কালার (ইনভেস্টমেন্ট ডিপার্টমেন্ট) এর প্রতি অনেক আগ্রহ আছে।

অনেকেই অভিনন্দন জানিয়েছিল ইন্টারশিপ টা পাওয়ার পর, অনেকেই আবার তাদের সিভি পাঠিয়ে জানতে চেয়েছিল তাদের সিভি টা কেমন হয়েছে। ৫-৭ জনের টা আমার সীমিত জ্ঞান দিয়ে সংশোধন করে দেওয়ার চেষ্টা করেছিলাম, ৩-৪ জন কে আবার নিজ হাতে সিভি করে দিয়েছিলাম। বলে রাখা ভাল আমার ক্রাশ ও আছে এই লিস্টে, আমার মনে পড়ে না, যে কি না ক্লাস নোট ছাড়া অন্য কোন ব্যাপার নিয়ে আমার সাথে কোন দিন কথা বলেছে। যাইহোক, আমার দৃঢ় বিশ্বাস এদের মধ্য থেকে অনেকেই খুব শীঘ্রই খুশির খবর জানাতে পারবে। নিজের ক্রেডিড নেওয়ার জন্য বলছি না যে তাদের কে হেল্প করেছি। আসল ব্যাপার টা হল একা একা খুশি হওয়া যায় না, যদি না যাদের সাথে মেলামেশা করা হয় তারা খুশি না থাকে। কমপক্ষে এতটুকু বলতে পারি আমার পজিশন টা আমার ভার্সিটির কোন বাংলাদেশী কে দিয়ে যাব এটা প্রায় নিশ্চিত, বোধ করি আমার এই অনুরোধ আমার টিমমেট রা গ্রহন করবে, এবং সেই বাংলাদেশী ও লেগাসি ধরে রাখতে পারবে। এই ইন্টারশিপ টার জন্য এখন সুন্দর একটা রুটিন ও অনুসরণ করতে পারছি। রাত ১০ টার মাঝে ঘুমিয়ে পড়া, সকাল ৬ টার আগে ঘুম থেকে উঠা, উইকেন্ডে অনেক দূর হাটতে বের হওয়া। যদিও CFA level 2, CMA level 1, জার্মান ভাষা বি২, পাইথন, সিকুয়েল সব মাখিয়ে বসে আছি, গিলতে কষ্ট হচ্ছে। কষ্ট হলে ও গিলতে হবে, কারণ কবি রবার্ট ফ্রস্ট বলে গেছেন "The woods are lovely, dark and deep, But I have promises to keep, And miles to go before I sleep, And miles to go before I sleep” বি দ্র: লেখা টা মুলত নিজের ওয়ালে পোষ্ট করার জন্য লেখা, পরে মনে হল কেউ যদি উৎসাহিত হয় পোস্ট টা পড়ে তাই গ্রুপে শেয়ার করা।

আকতার হোসাইন বাদল সোয়াইব্রুকেন, জার্মানি।

Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।