Recommendation/Motivation Letter


লিখেছেনঃ আবরার ফাহিম


কোন কোন ইউনিভারসিটি মোটিভেশন লেটার রিকোমেন্ডেশন লেটার চায়। মোটিভেশন লেটার তো আপনাকে লিখতে হবেই, রিকোমেন্ডেশন লেটারও অনেক ক্ষেত্রেই নিজেকে লিখতে হয়। আমরা যারা বাংলা মিডিয়াম এর স্টুডেন্ট ইংরেজি লিখার সময় অনেক সময় আমাদের ভয় কাজ করে, যা লিখছি তা গ্রামারটীকালি কতোটুক কারেক্ট বা যে ওয়ার্ড ব্যবহার করছি তাতে লেখাটা হাস্যকর হয়ে যাচ্ছে কি না। এখানে কিছু অনলাইন টুলস নিয়ে আলোচনা করব যাতে আপনার লেখা বেস্ট অফ দ্যা বেস্ট না হলেও হাস্যকর হবে না।

প্রথমে আসি গ্রামারটিকাল এরর নিয়ে। গ্রামারটিকাল ভুল অনেক বড় একটা ভুল হিসেবে দেখা হয় বিশেষ করে রাইটিং এর ক্ষেত্রে। আপনি ইজিলি এই প্রব্লেম সল্ভ করতে পারেন গ্রামারলি নামক এপ/সাইট দিয়ে। গ্রামারলির ফ্রি এবং পেইড ভার্সন দুইটাই আছে। ফ্রি ভার্সন দিয়েই আপনার ১০০ ভাগ মেজর ভুল সে শোধরে দিবে। তাই আপনার লিখা ডকুমেন্ট গ্রামারলিতে পেস্ট করে শোধরে নিন প্রথমেই বিনা পয়সায়। https://app.grammarly.com/

আমাদের আরেকটা প্রব্লেম হচ্ছে একই শব্দ আমারা বার বার ব্যবহার করি। এবং পুরা ডকুমেন্ট জুড়ে একই শব্দ বার বার থাকলেও তা আমাদের চোখ এড়িয়ে যায়। একই শব্দের বার বার ব্যবহার আমাদের লিখাকে যেমন দুর্বল করে তেমনি আমাদের ভোকাবুলারির রেঞ্জ যে কম তা চিল্লায়া জানান দেয়। তাই কোন শব্দ কয়বার ব্যবহার করছেন তা জানার জন্য ব্যবহার করুন ওয়ার্ড ফ্রিকুয়েন্সি কাউন্টার। এটা আপনার ব্যবহৃত ওয়ার্ড কোনাটা কয়বার ব্যবার করছেন তা দেখিয়ে দিবে। যে ওয়ার্ড মোস্ট ফ্রিকুয়েন্টলি ব্যবাহার করছেন নেট ঘেঁটে তার সিনোনিম নিয়ে রিপ্লেস করে দিন আর একঘেয়েমি লেখক থেকে ভাল লেখক বনে যান।

http://www.writewords.org.uk/word_count.asp

এখন গুগল ঘেঁটে রিকমেন্ডেশন বা মোটিভেশন লেটার এর স্যাম্পল পড়তে পড়তে যেকোনো লেটারের কোন একটা লাইন আপনার ভাল লেগে যেতে পারে। কিন্তু একজন ভাল মানুষ হিসেবে আপনি তো সরাসরি কপি মেরে দিতে পারেন না। এজন্য ব্যবহার করবেন অনলাইন প্যারাফ্রেইজার। গুগল করলে অনেক প্যারাফ্রেইজার পাবেন। যে আপনার কপি করা লাইনকে প্যারাফ্রেইজ করে দিবে।

https://paraphrasing-tool.com/

সাধু ব্যক্তি নিজের পাপ সম্পর্কে খুবই সচেতন থাকে, অসাধুর সে চিন্তা নাই। যেভাবেই লিখেন না কেন এখন আপনি চেক করবেন আপনার লেখা আসলে কারো সাথে মিলে টিলে গেছে কি না। এজন্য গ্রামারলির প্ল্যগারিজম ডিটেক্টর বা অন্য কোন প্ল্যাগারিজম ডিটেক্টর ব্যবহার করতে পারেন। প্লযগারিজম ক্ষেত্র বিশেষে ১০-১২ পারসেন্ট হলে সমস্যা নাই। কিন্তু এর বেশি হলে অনেক ক্ষেত্রে কিন্তু তা চুরি বলেই গণ্য হবে। যদি বেশী হয় তাহলে আবার নিজের ডকুমেন্ট পড়ুন। অনেক প্লেগারিজম চেকার কোন লাইন কপি মারছেন তা ডিটেক্ট করে দেখাবে সেই লাইন চেঞ্জ করে দিন। ব্যাস।

https://www.grammarly.com/plagiarism-checker

তারপর ভাল ইংলিশ পারে এমন কোন বন্ধু বা বড় ভাই দিয়ে ডকুমেন্টটা চেক করিয়ে নিন। (এর কোন লিঙ্ক নাই :D ) লিখববেন গুগুল ডকসে। এতে সুবিধা হল যাকে দিয়ে আপনি ডকুমেন্ট চেক করাবেন তাকে আপনি এর লিঙ্ক শেয়ার করতে পারবেন। চাইলে তাকে এডিট করার পারমিশনও দিতে পারবেন। তাছাড়া গুগল ডকস থেকে ডকুমেন্ট পিডিএফ আকারেও ডাউনলোড করতে পারবেন। আর আপনার লোকাল পিসে নষ্ট হয়ে গেলেও ডকুমেন্ট হারাবে না।



Subscribe to Our Newsletter

© BESSiG. বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অন্য যেকোন ওয়েবসাইট বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।